তোমার কাঁধ

কী অদ্ভূত এক ঝিলিমিলি ছায়া সেখানে
দখিনা বাতাসের কলরোলে
মুখরিত ভালবাসায় আন্দোলিত অনুভূতিরা
মুখ গুজে
চোখ বুজে
বসে থাকে
চুপচাপ
লক্ষ্মী পাখিটির মত।

দীর্ঘশ্বাসেরা আনুভূমিক হয়ে শুয়ে থাকে যেখানে
নির্ভরতার ভ্রমর গুনগুনিয়ে গেয়ে যায়
অবিশ্রাম শ্রাবনঘন মেঘনাম,
টেনিসনের পদ্মখেকোরা বড় বড়
চোখে তাকিয়ে দেখে
মানব মানবীর ঐতিহাসিক বিজয়।

আর কিছু নয় সেখানে
না কাম
না অস্থিরতা
না কোন বৈষয়িক অধিকার;

শুধু মগ্নতা
নিবিড়তা
ঐশী এক মধুর ব্যথাময় সুখের দ্বার
উন্মিলিত চোখে চেয়ে থাকে ওখানে,
কী শান্ত বিষন্ন প্রসন্নতা
ঐ দারুণ দুর্বিনীত মায়াময়
ছায়াময় কাঁধ ।

কাঁধ, ঐ বিশাল সুধাময় মানস প্রান্তর,
এ যুগের মানব মানবীরা
যার নেয় না খবর
পৃথিবীর এ সুগম্য সৌন্দর্য ভুলে
খুজে ফেরে সব প্রাচীন গূহা
বিকলাংগ হৃদয় নিয়ে স্বেচ্ছায় মেনে নেয়
সেখানে
নিস্তেজ অনুভূতির অকাল মরণ।
উফ কী বিভৎস করুণ মরণ!

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Follow

Get the latest posts delivered to your mailbox:

Free SSL