ব্লগ জীবনের শুরুর কথা

পিসি নিয়েছিলাম বছর পাঁচেক হল। অবস্য ছোটবেলা থেকেই পিসির প্রতি আমার আগ্রহ অসীম। কিন্তু থ্রি ইডিয়টসের খাতায় নাম লেখাতে পারিনি দুর্ভাগ্যজনকভাবে। বাবা মায়ের ইচ্ছাতলে নিজেকে সমর্পণ করে এবং অবশেষে নিজের ব্যর্থতাবলে হয়ে উঠি কম্পিউটারের জগত থেকে হাজার ক্রোশ দূরের কেউ।

তবুও কম্পিউটার জগত থেকে একেবারে দূরে থাকতে পারিনা। সেই সাথে বাড়িতে অনেক অনেক গল্পের বই থাকার দরুন ঝানু পাঠক হয়ে গিয়েছিলাম। ঝানু পাঠক মাত্রেই আনকোরা লেখক, বুঝতেই পারছেন! মানে আর কী, মাথায় হাজার হাজার শব্দ হজম করতে না পেরে তার নির্যাশ কিছুটা অপটু হাতে উগ্রে দিতে চায় যারা তারাই আনকোরা পাঠক!

যাহোক, লম্বা ইতিহাস থেকে আপনাদের মুক্তি দেই, ২০০৯ সালের কোন এক শুভ সকালে আবিস্কার করলাম, অন্তর্জালে এমন কিছু বাংলা ওয়েবপেইজ আছে যেখানে কিনা সম্পাদকের ভ্রু কুচকানি, আর সহলেখকদের লম্বা সিরিয়াল সহ্য করতে হয়না! আমি তো মনে হল, মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি পেয়ে গেলাম। শুরু করে দিলাম নাওয়া-খাওয়া ভুলে লেখা। আমার সে কী উত্তেজনা! কালো কালো অক্ষরগুলি নিমেষে আমার পরম সম্পদ হয়ে উঠতে লাগল। লেখার ফিডব্যাক পেয়ে সারাক্ষণ পিসির সামনে থেকে নড়তাম না। পরীক্ষা চলে এলে পরীক্ষাকে মনে হত জলজ্যান্ত ভিলেন।

সব ভাবনা আর চিন্তা ভাষা পেতে লাগল ব্লগের পাতায় পাতায়। সেই সাথে কিছু প্রিয় ব্লগ বা লেখার সংগ্রহে (প্রিয়তে) সাজিয়ে তুললাম নিজের প্রোফাইল। খুবই আত্মবিশ্বাসের সাথে বলতে পারি, আমার ব্লগের সংগ্রহে আছে অনেক বিরল এবং সমৃদ্ধ লেখা যা আপনাদের যে কারো কাজে লাগতে পারে। আমি ব্লগ থেকে এত বিষয় সম্পর্কে জেনেছি, শিখেছি যা এতটুকু পরিসরে বর্ণনা করা সম্ভব নয়। আমি যতগুলো ব্লগের সদস্য সত্যিই সেসকল ব্লগের উদ্যোক্তা এবং অ্যাডমিনের প্রতি কৃতজ্ঞ। অন্তর্জাল এবং প্রযুক্তিময় বিশ্বায়নের এই যুগে বাংলা ভাষাকে সারা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে তাদের অবদানকে কোনভাবে অস্বীকার করা যাবেনা । তাদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

ব্লগ থেকে আমার অভিজ্ঞতা এবং অর্জন এখানেই শেষ নয়। নিজেকে এখন অনেক বেশি মূল্যবান মনে হচ্ছে, যখন দেশে চলমান বিপ্লবের অংশ হিসেবে নিজেকে দেখি। এই মূল্যবোধ ও সচেতনতা উন্নয়নের একজন সৈনিক মনে করি নিজেকে। যখন ব্লগিং শুরু করি এবং সারাদিন পরে থাকতাম ব্লগে, অনেকেই আমাকে বকত, অবহেলা করত, বুঝতেই পারত না বিষয়টি। তবে আমার মনে হয় এখন কিছুটা হলেও বুঝতে পেরেছেন তারা একজন ব্লগার কী পারেন!

সাম্প্রতিক সময়ে আরো বেশি অবাক হয়েছি যখন বিভিন্ন জনপ্রিয় অনলাইন মার্কেটগুলোতে পেশাজীবী হিসেবে ব্লগারদের আবশ্যকতা দেখছি। আমি সত্যিই আজ ব্লগার হিসেবে আনন্দিত এবং উচ্ছসিত। নিজের ব্লগার পরিচয়টা এতদিনে পূর্ণ মর্যাদা পেল। সকল ব্লগারকে আরো আরো ইতিবাচক ব্লগিং করার আহবান করছি । শুভ ব্লগিং।

 

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Follow

Get the latest posts delivered to your mailbox:

Free SSL