অনুকবিতা

Poetry of Sharma Luna

১।

জলের পরে রেখেছিলাম হাত
কেটে গেছে কয়েকশত রাত
পাইনি তারে, পেয়েছিলাম জল
হলনা মন স্থির এক পল

২।

নিষ্কলুষ জীবন হয় না কারো,
তবু আজ পেয়েছি অমলিন প্রাণবান সুর,
অপাপবিদ্ধ সব মুহূর্ত
দূর্লভ প্রাকৃত প্রেম,
নির্বিবাদে করে গেছি
অপ্রয়োজনীয় ঘৃণা ও ক্লেশের হনন
রাখিনি কোন দ্বিধা-দহন।

৩।

বেশি কিছু না,
এমন ইলশে গুড়ি বৃষ্টির দিনে
ঘুম চোখে পাওয়া
বিছানায় এক কাপ চা,
হাতের কাছে জীবনানন্দ,
জানালার পাশে দাড়িয়ে থাকা
একজন হাসিখুশি
‘আপনি’ থেকে উন্নীত ‘তুমি’
কিংবা ‘তুমি’ থেকে উন্নীত ‘তুই’;

সুখী হতে বেশি কিছু লাগেনা

৪।

শহরের এধার থেকে ওধার উড়ে উড়ে
পাথরের এঘর থেকে ওঘর ঘুরে ঘুরে
কোথায় যেন হঠাৎ শুনতে পাই
আমার কোন বাড়ি ঘর নাই

৫।

অমলকান্তি বা জীবনানন্দ থেকে
লাবণ্য বা শোভনা
অবধি দেখে শিখে গেছি
জীবন মানে,
এক টাকার ম্যাচবাক্সে আগুন ভরা বারুদের কেমোফ্লেজ

৬।

সে কোন অন্তর্যামী…
চারদিকে খালি ভাঙ্গনের গান শুনি
কে দিতে পারে একটুকু ছায়াখানি
সে কোন অন্তর্যামী…

৭।

কে আছে এমন আর
দিতে পারে-
মান নয়, ধন নয়
সারাতে পারে-
বিক্ষত এক হৃদয়

৮।

জীবনের লাল, নীল আনন্দ কষ্ট
কোথায় আছিস বল
তোদের খোঁজে আসছি আমি
থাকবি সাথে চল………

৯।

দূরেই রাখো
দূরেই থাকো
তবু যদি
কাছে পাবার সাধ জাগে

১০।

এই নিদারুন তারুণ্য,
তুমি কী শুধু ফেসবুকের অলিগলি আর মুঠোফোনের ফুল ইনবক্স?
কিংবা রিক্সার টোপর মাথায় দিয়ে মিছে স্বপ্নের শব সন্ধান?
নিদারুন তারুণ্য,
তুমি এমন কুইন অ্যানির টি পার্টি চরিত্র বদলে এসো আমার কাছে!

১১।

কৃষ্ণচূড়ার রাজ্যে
বর্ষার জলে অবগাহনরত ঘাস
পায়ে এসে জড়াজড়ি করে,
এলিয়ে পরে।
তোমার চুলের মত মোলায়েম ঘাসদল
বৃষ্টিমাখা চোখ মেলে চেয়ে থাকে
আমার চোখে।

১২।

এই শহরের পাথুরে জঙ্গলে হারিয়ে গেছি
বুকের উপর ইট-কাঠ আর ধোঁয়ার পাহাড় চাপা
মাথার ভিতর অজস্র আঁধারি গান
প্রবল নেশার উন্মত্ততা আর ক্ষুধা
কেবল একটুখানি শিশিরমাখা সবুজের জন্য
শুধুই একটিবার জীবনানন্দময় অবসরের জন্য
সব দিক খুঁজে ফিরি

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Follow

Get the latest posts delivered to your mailbox:

Free SSL