ফেজবুক যেভাবে আপনার কাছ থেকে তথ্য নেয় (ফেজবুক অবজার্ভেশন-১ )

ফেসবুক সংক্রান্ত আমার কিছু Observation আছে। সেগুলো ধারাবাহিকভাবে শেয়ার করতে চাই। এইটা আসলে জ্ঞান ফলাইতেছি না, ফেজবুকের ব্যক্তিগত ও পেশাদার ব্যবহারকারী হিসেবে নিজের অভিজ্ঞতাটুকুই বলবো। এবং আমি যা বলবো তাতে কোন ভুলও থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে মতামত দিয়েন। তবু শেয়ার করতে চাই।

– প্রাকৃতিক ঝড়ের মত ফেজবুকেও মাঝে মাঝে ঝড় আসে। আর কয়েক লাখ থেকে কয়েক কোটি লোকের আইডি হ্যাক হয়, তথ্য চুরি হয়। ফেসবুকের “View As” ক্যাটাগরিতে এখন আর ‘Public View’ অপশনটি নেই। শুধু আপনাকে নয়, ফেজবুক নিজেকে নিরাপদ করার জন্যই অপশনটি তুলে দিয়েছে। এই ভিউ অ্যাজ অপশনের ত্রুটির কারনে আপনার Profile থেকে তথ্য চুরি করা হয়েছে। কারা চুরি করেছে সেটা গুরূত্বপূর্ন না, চুরি গেছে সেটাই গুরূত্বপূর্ন। ফেসবুক সেটা স্বিকার করেছে বলে তাঁর বিপদ কমে গেছে। কারণ তথ্য শেয়ার করায় মানুষের যে আগ্রহ তা কোনভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে পারা সম্ভব নয় এখন আর। কেননা সেটা ফেজবুকের জন্য সাংঘর্ষিক হয়ে যাবে। ফেজবুক তাঁর অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য এবং সাফল্যের সাথে ব্যাবসা চালিয়ে যাবার জন্য আপনাকে কখনোই তথ্য শেয়ারে সতর্ক বা সংযত হতে বলবে না। বরং আরও বেশি শেয়ার করতে উৎসাহ দিয়ে যাবে।

– ফেজবুক আসলে মানুষের মনস্তত্ত্ব নিয়ে কাজ করে। ব্যবসা করার আগে কোন মানুষ যেমন তাঁর ক্রেতা বুঝতে চায় এবং বাজারে তাঁর পণ্যের চাহিদা বুঝতে চায়, ঠিক সেই কাজটিই করে ফেজবুক। ব্যবসায়ের বড় অংশ হল Customer psychology। এই জিনিষ বোঝার কাজটি করার একটি Digital Tool হল ফেজবুক। শুধু ফেজবুক না, দুনিয়ার সকল সামাজিক মাধ্যমই এখন এই কাজ করে। তাই এখানে আপনি যা যা শেয়ার করবেন নিজের পছন্দ-অপছন্দ-মতামত এবং যেসব লাম-সাম-সিরিয়াস-আনসিরিয়াস জরিপ, কুইজ, গেমস যা যদ্দুর আছে সবকিছুর মাধ্যমে আপনার তথ্য সংগ্রহ করবে ফেজবুক। এবং ফেজবুক সংগ্রহ করে সেটা আপনার অজান্তেই আরেকজনের কাছে বিক্রি করে দেবে।

আপনি হয়তো এরকম কোন কুইজে অংশ নিয়েছেন যে, আপনি কোন সেলেব্রিটির মত দেখতে, সেখানে যখন Continue As বাটন চেপেছেন তখন ঐ ওয়েবসাইটটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করা সকল তথ্যই পেয়ে যায়, সে অনুযায়ী সে আপনাকে প্রাসঙ্গিক ফলাফল দেখায়। কিন্তু আপনার ফেজবুক টাইমলাইনের তথ্য এবং ফলাফল দেখার পরেও যতদিন আপনি ফেজবুক ব্যাবহার করবেন, সব তথ্যই ঐ অ্যাপ পেতে থাকবে। এবং তারা আপনার তথ্য পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আপনার পছন্দমত আরও কুইজ বা অ্যাপ তৈরি করে আপনার সামনে পরিবেশন করবে। তাদের লক্ষ্য হল তাদের অ্যাপ বা ওয়েবসাইটে যেসব পণ্যের অ্যাড চলতে থাকে সেগুলো ক্লিক করতে আকৃষ্ট করা। অতএব, আপনি আসলে তাদের কাছে একজন ক্রেতা, কিন্তু আপনার শেয়ার করা তথ্য দিয়েই আপনাকে তারা তাদের পণ্য কেনাচ্ছে। অতএব এসকল জরিপ-টেস্ট-কুইজে অংশ নেয়া থেকে বিরত থাকলে তথ্য চুরি থেকে কিছুটা হলেও বাচতে পারবেন।

– ফেজবুকে যেসব পোস্ট আপনি দেন, যেসব লিংক শেয়ার করেন, যেসকল পেজে লাইক দেন সেসব তথ্য ফেজবুক বিশ্লেষণ করে। সেসকল তথ্য অনুযায়ী ফেজবুক আপনাকে কোন না কোন ক্যাটাগরিতে ফেলবে। ধরুন আপনি স্ট্যাটাস দিয়েছেন আপনি কোন প্রাইভেট কোম্পানির ম্যানেজার হিসেবে প্রোমোটেড হয়েছেন, তখন সে আপনাকে ওয়ার্ক ক্যাটাগরিতে ফেলবে, সাব-ক্যাটাগরিও আছে অনেক, কোন না কোন সাবক্যাটেগরিতে আপনি আরও স্পেসিফিক্যালি পরে যাবেন ই। এবং তখন আপনি যেসকল পেজ লাইক করেছেন বা করেন নি, যদি তারা ঐ ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে কোন ক্যাম্পেইন চালায়, আপনাকে সেসব অ্যাড দেখাবে তাদের পণ্য কেনার ক্ষেত্রে প্রলুব্ধ করার জন্য। এবং অনেক ক্ষেত্রে তারা সফল। কেননা এখন অনলাইনে কেনাকাটা বেড়েছে। অনলাইনেই না অফলাইনেও ঐ পণ্যটি কিনতে ক্রেতা প্রলুব্ধ হয়। মোট কথা পণ্য সেটা প্রয়োজনীয় হোক কিংবা অপ্রয়োজনীয়, সেটা কেনানোই মূল লক্ষ্য।

আজকের এই তীব্র ভোগ ও পুঁজির যুগে কোন কিছুই ফ্রি না। মার্ক জুকারবার্গ বলেছেন, ফেজবুক আজীবন ফ্রি থাকবে। এর কারণ হল, আসলে ফেজবুক এর প্রিমিয়াম হবার দরকার হবেনা। ফ্রি অ্যাকাউন্ট খুলে মানুষ যে পরিমাণ তথ্য নিজের সম্পর্কে দিচ্ছে সেটাই ফেজবুক বা এই জাতীয় সামাজিক মাধ্যমের বড় পুঁজি। শুধু Data Science এর উপর ভিত্তি করে ফেজবুক পৃথিবীর তাবৎ ব্যবসা পদ্ধতিতে পরিবর্তন এনেছে। কেননা, এই ফ্রি টুলটি মানুষকে আরও পণ্য কেনার জন্য দারুণভাবে অনুপ্রাণিত করেছে, এবং শুধু পণ্য কেনা-ই নয়, মানুষ ও তার আবেগকেও একটি Intellectual পণ্যের মতই বিক্রি করতে প্রলুব্ধ করছে।

(চলবে)

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Follow

Get the latest posts delivered to your mailbox:

Free SSL