আমাদের হলে বিদেশী ছবি

দেশে হিন্দী চলচ্চিত্র চালানোর কোন দরকার নেই। লাভ এর চেয়ে ক্ষতিই বেশি। প্রতিযোগিতাটা হবে হাতির সাথে চিতাবাঘ যদি একসাথে রেসের জন্য নামে সেরকম (তবে সেটা খরগোশ আর কচ্ছপের গল্পের মত হবে না, ভূমিকাতেও নয়, পরিনতিতেও নয়)। আর প্রতিযোগিতা করার যোগ্যতা অর্জনের পর ও যদি আমাদের চলচিত্র বাজার উন্মুক্ত হয় অন্য দেশীয় চলচ্চিত্রের জন্য, সেক্ষেত্রেও সেগুলো হতে হবে বাংলায় ডাবকৃত। তাহলে অন্তত আমাদের কিছু অনুবাদক আর কন্ঠ শিল্পীর (বাংলা সংলাপ বলবে যারা) কর্ম সংস্থান হত। জনগণের হয়ে সরকার এইটুকু স্বাজাত্যবোধ দেখাবে, এটুকু আশা আমরা করতেই পারি।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Follow

Get the latest posts delivered to your mailbox:

Free SSL