এমন কী কথা ছিল!

কেউ ভাবিনা
এভাবে কখনো বাঁচতে হবে,
এভাবে দিনগুলো একটার পর একটা
ঝরে যাবে শুকনো পাতা হয়ে।
যা হতে সবাই আসে,
তা হতে না পারার কষ্ট বয়ে বয়ে।

কেউ বুঝিনা
অঙ্কুরিত স্বপ্নগুলো শুধু মিছেই বাতিক
অসাধারণের পাঠ নিয়ে স্বরচিত মঞ্চে
প্রফুল্ল চিত্তে ঘুরে বেড়াই
এ শুধু নিজ উদ্ভাবিত বিনোদন,
হ্যা,বিনোদন ই বটে।

একদিন আসে ঝড়ের রাত্রি
সৃষ্টির ঘরে আগুন।
আরে ধুর! কিচ্ছু হবেনা:
সব চেতনার পত্রপাট বিদায়।

ওর চেয়ে বরং
মা লক্ষ্মীর চরণতলে তাঁবু গেড়ে
শুয়ে থাকা যাক দিন রাত।
যদি পাওয়া যায় কিছু গাড়ি-নারী-ভাত।

ভাত রাঁধি,খাই, ঘুমাই, তারপর?
তারপর সন্তান জন্ম দেই
একদিন মরে যাই ইঁদুরের মত
কেউ মনে রাখেনা।
জন্মাই ও না কী ইঁদুরের মত?
কে মনে রাখে??

ভাবিনি
আমাকেও বাঁচতে হবে,
এভাবে।
একটার পর একটা দিন বয়ে যায়
কবিতাহীন, প্রেমহীন, নতুন কোন সৃষ্টিহীন
ভালবাসার শিহরণহীন।

শুধু ভাত রাঁধি, খাই, ঘুমাই, তারপর?
সন্তান জন্ম দেই।
মানবসন্তান?বোধহয় না।

একটাও নতুন কবিতা লিখতে পারিনি, পারিনা।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন:

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Follow

Get the latest posts delivered to your mailbox:

Free SSL